অর্থমন্ত্রী মুহিত বললেও জানে না ইসি ! নেপথ্যে কি ?

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একাধিক দিনে ভোট নেয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে বলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত যে কথা বলেছেন, সেটা নির্বাচন কমিশন জানে না। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ আইন সংশোধন ছাড়া একাধিক দিনে জাতীয় নির্বাচনে ভোট নেয়ার সুযোগ নেই বলেও জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

১৯৭৩ সাল থেকে এখন অবধি যে ১০টি জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়েছে, তার প্রতিটিতে ভোট হয়েছে একই দিনে। কেবল গোলযোগের কারণে কোনো এলাকায় বা ভোটকেন্দ্রে ভোট স্থগিত হলে সেসব কেন্দ্রে পরে ভোট হয়েছে। তবে উপজেলা বা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ধাপে ধাপে ভোট নেয়া হয়েছে।

তবে শনিবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক অনুষ্ঠানে গিয়ে অর্থমন্ত্রী জাতীয় নির্বাচনে একাধিক দিনে ভোট নেয়ার পরিকল্পনার কথা জানান। তিনি বলেন, ‘ছবিসহ ভোটার আইডি কার্ড হওয়ায় ফলে এখন আর জালিয়াতির নির্বাচন করা সম্ভব না। তবে দুই এক জায়গায় গুণ্ডা বাহিনী দিয়ে ভোট কেন্দ্র দখল করার সম্ভাবনা রয়েছে। সেজন্য পর্যাপ্ত আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে সারাদেশে কয়েক ধাপে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আয়োজন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।’

রবিবার বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবের কাছে বিষয়টি নিয়ে জানতে চান গণমাধ্যম কর্মীরা। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে আমাদের জানা নেই। আরপিও (গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ আইন) অনুসারে নির্বাচন একদিনেই হয়, একদিনেই হবে।’

ইসি সচিব বলেন, ‘মাননীয় অর্থমন্ত্রী বলেছেন, আমি শুনেছি। তবে এ ধরনের পরিকল্পনা কমিশনের আপাতত নেই। একদিনেই ভোট হবে।’

‘আমাদের কাছে সরকার থেকে কোন ম্যাসেজ আসেনি। এ পর্যন্ত আমাদের একদিনের পরিকল্পনাই আছে। আরপিওতে আছে জাতীয় সংসদ নির্বাচন একদিনেই করতে হবে। ধাপে ধাপেভোট করতে হলে আরপিও পরিবর্তন করতে হবে।’

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ১০ আঞ্চলিক ও ৬৪ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার সঙ্গে আজ বৈঠক করেছে নির্বাচন কমিশন। এরপর কমিশন সচিব মুখোমুখি হন সাংবাদিকদের সঙ্গে।

এই বৈঠকের বিষয়ে সচিব বলেন, ‘আজকে জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের সারা বাংলাদেশে যে ভোটকেন্দ্র আছে সেগুলো পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দিতে বলেছি। সেখানে কোন সমস্যা আছে কি না, সরেজমিনে তাদেরকে দেখতে বলেছে কমিশন।’

‘এটা ছিল সকালে আলোচনা। আর বিকালের আলোচনা ছিল আগামী ২৯ তারিখ (মার্চ) বিভিন্ন জায়গায় কিছু পৌরসভা নির্বাচনসহ বিভিন্ন নির্বাচন হবে। সেগুলো যেন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় সে ব্যপারে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

‘ভোট কেন্দ্রের ব্যাপারে আমরা বলেছি। সুবিধাজনক যায়গায় ভোটকেন্দ্র করার ব্যাপারে মতামত জানতে চেয়েছি। নতুন ভোট কেন্দ্র করতে নতুন নীতিমালা করার পরামর্শ দিয়েছে তারা।’

নিবন্ধনের জন্য রাজনৈতিক দলের আবেদনে যাচাইবাছাই কমিটির অগ্রগতির বিষয়ে জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, ‘শতাধিক দল নিবন্ধন পেতে আবেদন করেছে। আগামীকাল সোমবার নির্বাচন কমিশন সভা আছে, সেখানে বিষয়গুলো উপস্থাপন করা হবে। হয়ত কালকে এ বিষয়ে জানাতে পারব।’

আগামী নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে কি না-জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘ইভিএমের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যবহার করা হবে কি না সে বিষয়ে আলোচনা হয়নি। সামনের স্থানীয় সরকার নির্বাচন ও সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে নির্বাচন কমিশনের আগ্রহ আছে। আমরা ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের অভিহিত করছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *