এইমাত্র জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকলো বিএনপি ! উপস্থিতি থাকবেন কে কে নেপথ্যে কি ? কঠিন সিদ্ধান্ত !

সন্ধ্যায় জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি। গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সন্ধ্যা ৬টায় সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এতে বক্তব্য রাখবেন। দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা এ সময় উপস্থিত থাকবেন।

‘খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে মাস্টার প্লান হচ্ছে’

‘বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে সরানোর চেষ্টা চলছে’ বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দী করে তার জীবনযাপন ও রাজনীতি থেকে দূরে সরানোর দীর্ঘদিনের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মাস্টার প্ল্যান বাস্তবায়ন করছেন শেখ হাসিনা।’

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী আহেমদ।

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসা নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত উদাসীনতা ও উপেক্ষায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কোনোরূপ ক্ষতি হলে সরকার কোনোভাবেই রেহাই পাবে না।’

বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ের এ মুখপাত্র বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার আত্মীয়স্বজন গত পরশু দেখা করেছেন। তারা দেশনেত্রীর অসুস্থতা দেখে বেদনাহত হয়েছেন। দেশনেত্রীর শারীরিক অসুস্থতা ক্রমাগত অবনতিশীল।

ইতিপূর্বে তার হাঁটুতে অস্ত্রোপচার থাকার কারণে কারাগারে বিনা চিকিৎসায় হাঁটুর ব্যথা এখন আরও তীব্র হয়েছে। বাম হাতের ব্যথায় তিনি ভীষণ কষ্ট পাচ্ছেন। সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিসের কারণে হাত-পা নড়াতে তার ভীষণ কষ্ট হচ্ছে। ইতিপূর্বে তার চোখে অস্ত্রোপচার হওয়ায় এখন চিকিৎসার অভাবে চোখ সবসময় লাল থাকছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের নিয়োগ দেয়া চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তাকে দেয়া হয়নি অর্থপেডিক বেড, করা হয়নি নিয়মিত ফিজিওথেরাপির ব্যবস্থা এবং উন্নতমানের এমআরআই দিয়ে পরীক্ষা করা। প্রায় রাতে তিনি জ্বরে ভুগছেন। বারবার দাবি জানানোর পরও ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে দেশনেত্রীর চিকিৎসা অগ্রাহ্য করা হয়েছে।’

রিজভী বলেন, ‘সরকারের উদ্দেশ্য অশুভ, অমানবিক এবং ব্যক্তি মানবাধিকারের প্রতি চরম অবজ্ঞা। মূলত চিকিৎসা দিতে অগ্রাহ্যের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয় বেগম জিয়া সরকারপ্রধানের হিংসার সম্মুখীন।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস মিথ্যা মামলায় নারায়ণগঞ্জ কারাগারে বন্দী আছেন উল্লেখ করে রিজভী আহমেদ বলেন, ‘তিনি বর্তমানে গুরুতর অসুস্থ হলেও জেল কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসার ব্যবস্থা না নেয়ায় আমি দলের পক্ষ থেকে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি এবং অবিলম্বে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহার এবং নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপেদষ্টা আব্দুস সালাম, ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন,সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *