খালেদা জিয়ার জামিন: কী বলছেন আইনজীবীরা? বিস্তারিত পড়ুন

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আপিল খারিজ করে আজ বুধবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চ এ রায় দেন।

তবে জামিন পেলেও এখনই তিনি মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

এ প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, ‘আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার আপিল নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন।

এখন আপিল শুনানির জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া নিম্ন আদালতে এই মামলার বিচার নয় বছর ঝুলিয়ে রেখেছিলেন। আপিল বিভাগের এ আদেশের ফলে এখানে আর বিচারকে তিনি বিলম্বিত করতে পারবেন না বলে আশা করা যায়।

মাহবুবে আলম আরও বলেন, সচরাচর কোনো আসামির যদি একাধিক মামলা থাকে, তাহলে সেসব মামলায় জামিন না পাওয়া গেলে মুক্তি পাওয়া যায় না। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আরও মামলা রয়েছে। সেগুলো থেকে জামিন নেওয়ার পরই তিনি মুক্তি পাবেন।

দুদক আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘জামিনের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের আপিল খারিজ করে দিয়ে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে হাইকোর্ট বিভাগে মূল আপিল নিস্পত্তি করতে বলেছেন।

এখন আপিল বিভাগের এ রায় পাওয়ার পর আমরা হাইকোর্ট বিভাগে যাব। যখন পূর্ণাঙ্গ রায় পাওয়া যাবে তখন বোঝা যাবে কী কারণে আমাদের যুক্তিগুলো টেকেনি।’

এদিকে অন্য মামলাগুলোতে জামিন আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। তার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেছেন, ‘সরকার তো সবসময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করবে। তবে আমরা আশা করছি, আইনগতভাবে আমরা সব বাধা অতিক্রম করতে পারব।’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপরসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। এর পর থেকেই কারাগারে আছেন বেগম জিয়া।

কারাগারে থাকা তিন মাস আট দিনের মাথায় হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আপিল বিভাগে বহাল থাকল খালেদা জিয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *