গাজীপুরে কাউন্সিলর যার যার, যে মার্কা সবার

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থীকে বিজয়ী করতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এবারের নির্বাচনে ৫৭টি ওয়ার্ডের জন্য গঠিত ১১৬টি কমিটি প্রথম পর্বের কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে।

কমিটিগুলোর প্রথম পর্বের কার্যক্রম শেষে আজ বুধবার পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলমের জয়লাভের ব্যাপারে নানা প্রতিবন্ধকতা চিহ্নিত এবং সেগুলো সমাধানের উপায় নির্ধারণ করা হয়।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী ও গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে রাজবাড়ী সড়কের জেলা কার্যালয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক এমপি ও কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপি, গাজীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান, প্রকৌশলী আবদুস সবুর, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গঠিত কমিটিগুলোর প্রধান সমন্বয়ক ইকবাল হোসেন সবুজ, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম।

সভায় জানানো হয়, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থীকে বিজয়ী করতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এবারের নির্বাচনে করপোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডের জন্য ১১৬টি কমিটি গঠন করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এ কমিটিগুলোর প্রধান সমন্বয়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

১০ সদস্যের প্রতিটি কমিটি গত ২৪ এপ্রিল থেকে এ নির্বাচনী এলাকায় নৌকার প্রতীকের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করে। তারা প্রতিদিন প্রতিটি ভোটারদের বাড়ি, অফিস, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন এলাকায় ছুটে যায় এবং তাদের সমর্থন আদায়ের জন্য কথা বলে। ১২ জুন পর্যন্ত তারা এ কার্যক্রম পরিচালনা করে। এ কার্যক্রম পরিচালনাকালে সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে স্থানীয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা করে। বুধবার অনুষ্ঠিত সভায় সেসব সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

কমিটির সদস্যরা জানান, আওয়ামী লীগ বা অঙ্গ সংগঠনের একাধিক নেতা কাউন্সিলর পদে পরস্পরের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থীর জন্য কিছুটা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এসব কমিটির সদস্যরা। আলোচনা শেষে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ অন্য পদের প্রার্থীদের বেলায় নিজেদের পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন করলেও মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একযোগে কাজ করার নির্দেশ দেন।

এ সময় কমিটিগুলো জানায়, এবারের নির্বাচনে ‘কাউন্সিলর যার যার, নৌকা সবার’ এ লক্ষ্য নিয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে। সভায় কমিটিগুলোকে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠান পর্যন্ত মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করার পরামর্শ দেওয়া হয়। বিশেষ করে ভোট গ্রহণের দিন যাতে প্রতিটি ভোটার নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে কেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে সে ব্যাপারে সহযোগিতা করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থীসহ সাতজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে ছয়জন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনীত এবং একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। এ ছাড়াও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ডের সাধারণ আসনের কাউন্সিলর পদে ২৫৪ জন এবং ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর পদে ৮৪ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এবারের নির্বাচনে একটি ওয়ার্ডে সাধারণ আসনের কাউন্সিলর পদে একজন প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এবার গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার পাঁচ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ জন এবং নারী ভোটার পাঁচ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *