ব্রেকিং ব্রেকিং : খালেদার মুক্তি পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা আছে কি না – প্রশ্নের জবাবে যা বললেন

খালেদা জিয়ার ভাইয়ের চিঠি নিয়ে সচিবালয়ে যান বিএনপির উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার।

তিনি সাংবাদিকদের কাছে প্রশ্ন রাখেন, ‘কারাবন্দিদের বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার অসংখ্য নজির রয়েছে। খালেদা জিয়ার বেলায় তা দেওয়া হচ্ছে না কেন?’

বিষয়টি উল্লেখ করে মন্ত্রীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘নজির তো অনেক রয়েছে। এটা তো আমরা অস্বীকার করছি না।

কিন্তু এ নজিরও তো রয়েছে যে আমাদের নেত্রী মতিয়া চৌধুরীর একবার অস্ত্রোপচার হয়েছিল। সে সময় তো এই নজির মানা হয়নি। আমরা সেদিকে যেতে চাই না।

আমরা চাই খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে হোক। সরকারি হাসপাতালে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তাঁর চিকিৎসা করাতে আমরা চেষ্টা করে যাব।

তবে তাঁর চিকিৎসা যেখানেই হোক, তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা সব সময় চিকিৎসা দেওয়া ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সময় সামনে থাকার সুযোগ পাবেন।’

ঈদের আগে মুক্তি পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা আছে কি না জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা হলাম রক্ষক। আমরা আদালতের নির্দেশ পালন করি মাত্র।’

কারাগারে খালেদা জিয়ার জন্য বিশেষ কী ব্যবস্থা থাকবে জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এবং একটি বড় দলের প্রধান হিসেবে তাঁর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা সব সময়ই  থাকে। ঈদেও থাকবে।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত।

এ মামলার অপর আসামি খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচজনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাঁদের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা জরিমানাও করা হয়।

রায়ের পর পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে খালেদা জিয়াকে সেখানে রাখা হয়।

গত জুন কারান্তরীণ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা জানান, তাঁদের ধারণা সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাইল্ড স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *